সম্পাদকীয়

ব্যতিক্রমধর্মী মাসিক পত্রিকা সংস্কারের এ সংখ্যাটি হচ্ছে ২৪ তম বর্ষ শুরু সংখ্যা। আজ থেকে ২৪বছর আগে ১৯৯৭ সালের আগস্ট মাসে বেরিয়েছিল সংস্কারের প্রথম সংখ্যাটি। সেই প্রথম আলোর মুখদেখা এবং পথ চলা শুরু করে স.......

বিস্তারিত পড়ুন

আল-কুরআন

(৫১ থেকে ৬৫) ৫১. সে বললো: তাহলে অতীত হয়ে যাওয়া লোকদের অবস্থা কী?৫২. মূসা বললো: এ বিষয়ের জ্ঞান আমার প্রভুর কাছে কিতবে লিপিবদ্ধ রয়েছে। তিনি ভুলও করেন নাই, ভুলেওযাননা।৫৩. তিনি পৃথিবীকে তোমাদের জন্য বিছ.......

বিস্তারিত পড়ুন

আল-হাদীস

আলী রা. হতে বর্ণিত আছে যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এই ইরশাদ করেছেন, বান্দাযখন মেসওয়াক করে নামাযের জন্য দাঁড়ায় তখন ফেরেশতা তার পিছনে দাঁড়িয়ে যায় এবং অত্যন্তমনোযোগ সহকারে তার তেলাওয়া.......

বিস্তারিত পড়ুন

খরচ কমানোর প্রয়োজন মোবাইল সেবায়

(মতামত লেখকের নিজস্ব)
ইন্টারনেট সেবা মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। গ্রাহক সেবার কাছে
নয়, বরং সেবাই চলে যাবে গ্রাহকের দুয়ারে-এমন প্রচারণা চালাচ্ছে সরকার। ই-গভর্নেন্স এখন কেবল
ধারণাই নয়, তার বাস্তব রূপ পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশে। তার সুফলও ভোগ করতে শুরু করছে দেশের
জনগণ। ডিজিটাল বাংলাদেশের এমন অগ্রযাত্রার পথে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছে এবারের বাজেটের
মোবাইল সেবার উপর কর বৃদ্ধির বিষয়টি। বাজেটে মোবাইল সেবায় সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ বাড়ানো
হয়েছে। দেশে সচল সিমের সংখ্যা প্রায় ১৬ কোটি, আর মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর
সংখ্যা প্রায় ১০ কোটি। এই বিশাল জনগোষ্ঠী বিভিন্ন কাজে মোবাইল সেবা গ্রহণ করে থাকেন। অনলাইন
ক্লাস, গবেষণা, হোম অফিস সহ নানা কাজে তাদের নির্ভর করতে হয় ইন্টারনেটের উপর। এছাড়া
বর্তমানে বিনোদনের একটা বড় মাধ্যম অনলাইন প্ল্যাটফর্ম। কিন্তু কর বৃদ্ধির কারণে ইন্টারনেট সেবা
গ্রহণে নিরুৎসাহিত হচ্ছে শিক্ষার্থী ও স্বল্প আয়ের মানুষ। তাই দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা
অব্যাহত রাখতে তথ্য প্রযুক্তির ব্যাপক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। আর তার জন্য মোবাইল সেবার
ব্যয় সীমিত করা প্রয়োজন।
জাকারিয়া মোহাম্মদ
শিক্ষার্থী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।