সম্পাদকীয়

ব্যতিক্রমধর্মী মাসিক পত্রিকা সংস্কারের এ সংখ্যাটি হচ্ছে ২৪ তম বর্ষ শুরু সংখ্যা। আজ থেকে ২৪বছর আগে ১৯৯৭ সালের আগস্ট মাসে বেরিয়েছিল সংস্কারের প্রথম সংখ্যাটি। সেই প্রথম আলোর মুখদেখা এবং পথ চলা শুরু করে স.......

বিস্তারিত পড়ুন

আল-কুরআন

(৫১ থেকে ৬৫)৫১. সে বললো: তাহলে অতীত হয়ে যাওয়া লোকদের অবস্থা কী?৫২. মূসা বললো: এ বিষয়ের জ্ঞান আমার প্রভুর কাছে কিতবে লিপিবদ্ধ রয়েছে। তিনি ভুলও করেন নাই, ভুলেওযাননা।৫৩. তিনি পৃথিবীকে তোমাদের জন্য বিছানা.......

বিস্তারিত পড়ুন

আল-হাদীস

আলী রা. হতে বর্ণিত আছে যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এই ইরশাদ করেছেন, বান্দাযখন মেসওয়াক করে নামাযের জন্য দাঁড়ায় তখন ফেরেশতা তার পিছনে দাঁড়িয়ে যায় এবং অত্যন্তমনোযোগ সহকারে তার তেলাওয়া.......

বিস্তারিত পড়ুন

সূরা তোয়াহা

(৫১ থেকে ৬৫)
৫১. সে বললো: ‘তাহলে অতীত হয়ে যাওয়া লোকদের অবস্থা কী’?
৫২. মূসা বললো: ‘এ বিষয়ের জ্ঞান আমার প্রভুর কাছে কিতবে লিপিবদ্ধ রয়েছে। তিনি ভুলও করেন নাই, ভুলেও
যাননা’।
৫৩. তিনি পৃথিবীকে তোমাদের জন্য বিছানার মতো সমতল করে দিয়েছেন, তাতে তোমাদের চলাচলের জন্যে পথ
করে দিয়েছেন এবং সেখানে আকাশ থেকে পানি বর্ষণ করেন, আর তা থেকে আমরা উৎপন্ন করি বিভিন্ন প্রকারের
উদ্ভিদ।
৫৪. তোমরা তা থেকে খাও এবং তাতে তোমাদের গবাদি পশু চরাও। বুদ্ধি-বিবেক সম্পন্ন লোকদের জন্যে এতে
রয়েছে অনেক নিদর্শন।
৫৫. আমরা তা (মাটি) থেকেই তোমাদের সৃষ্টি করেছি, তাতেই তোমাদের ফেরত দেবো এবং তা থেকেই তোমাদের
পুনরায় খারিজ (বের) করে আনবো।
৫৬.আমরা তাকে (ফেরাউনকে) আমাদের সব নিদর্শন দেখিয়েছিলাম। কিন্তু সে (সেগুলোকে) মিথ্যা বলে
প্রত্যাখ্যান করে এবং (ঈমান আনতে) অস্বীকার করে।
৫৭. সে বলেছিল: ‘হে মূসা! তুমি কি তোমার ম্যাজিকের (যাদুর) সাহায্যে আমাদেরকে আমাদের দেশে থেকে বের
করে দেয়ার জন্যে এসেছো?
৫৮.আমরাও অনুরূপ ম্যাজিক (যাদু) উপস্থিত করবো। সুতরাং আমাদের এবং তোমার মাঝে একটি প্রতিশ্র“ত
সময় নির্ধারণ করো, যেটি আমরাও লঙ্ঘন করবোনা, তুমিও লঙ্ঘন করবেনা। সেটি হতে হবে মধ্যবর্তী স্থান’।
৫৯. মূসা বললো: ‘সেই প্রতিশ্র“ত সময়টি হলো উৎসবের দিন এবং সেদিন পূর্বাহ্ন থেকেই জনগণকে সমবেত করা
হবে’।
৬০. ফেরাউন (এ কথার উপর) উঠে গেলো, তার সমস্ত কৌশল জমা করলো। তারপর হাজির হলো।
৬১. মূসা তাদের বললো: ‘ধ্বংস হও, তোমরা মিথ্যা রচনা করে আল্লাহর উপর আরোপ করোনা, তা করলে তিনি
তোমাদের আযাব দিয়ে সমূলে ধ্বংস করে দেবেন। যারাই মিথ্যা রচনা করেছে, তারাই ব্যর্থকাম হয়েছে’।
৬২.(একথা শুনে) তারা তাদের সিদ্ধান্তের বিষয়ে নিজেদের মধ্যে বিতর্কে লিপ্ত হয় এবং গোপনে পরামর্শ করে।
৬৩. তারা (ফেরাউন ও তার পরিষদবর্গ ও জনগনের উদ্দেশ্যে) বললো: ‘এরা দুই ভাই দুই পাক্কা ম্যাজেসিয়ান।
তারা তাদের ম্যাজিকের সাহায্যে তোমাদেরকে দেশ থেকে বের করে দিতে চায় এবং তোমাদের অনুকরণীয় জীবন
পদ্ধতি ধ্বংস করে দিত চায়।
৬৪.অতএব (হে ম্যাজেসিয়ানরা!) তোমরা তোমাদের সমস্ত কৌশল জমা করো, তারপর সারিবদ্ধ হয়ে উপস্থিত
হও। আজ যে জয়ী হবে সে-ই হবে সফল।

৬৫.তারা (ম্যাজেসিয়ানরা) বললো: ‘হে মূসা! হয় আপনি আগে নিক্ষেপ করুন, নয়তো পয়লা আমরাই নিক্ষেপ
করি’। (ত্র“মশ)